আইইউবিএটিতে জাতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

আইইউবিএটিতে জাতীয় বিতর্ক  : ঢাকার উত্তরায় অবস্থিত ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস্ এগ্রিকালচার এন্ড টেকনোলজিতে (আইইউবিএটি) বসেছিল জাতীয় বিতর্কের আসর। সফলতার সঙ্গে ‘আইইউবিএটি জাতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতা ২০১৯’ আয়োজন সম্পন্ন করে আইইউবিএটি ডিবেটিং ফোরাম।

আইইউবিএটিতে জাতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

আইইউবিএটির ২৮তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে ২৩ এবং ২৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ক্যাম্পাসে বাংলা সংসদীয় পদ্ধতির জাতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতা আয়োজন করা হয়। উৎসবমুখর এই প্রতিযোগিতায় দেশের স্বনামধন্য ৩২টি স্কুল এবং কলেজের শিক্ষার্থীরা অংশ গ্রহণ করেন।

[ আইইউবিএটিতে জাতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত ]

প্রথম দিনে ৮৫টি সেশনে ডিবেট অনুষ্ঠিত হয় এবং সেখান থেকে ৪টি দলকে ওপেন রাউন্ডে সেমিফাইনালের জন্য নির্বাচন করা হয় এবং স্কুল রাউন্ডের দুটি দলকে সরাসরি ফাইনালের জন্য নির্বাচন করা হয়।

ওপেন রাউন্ডে আদমজী ক্যান্টনমেন্ট কলেজকে হারিয়ে বিজয়ী হয়েছে আদমজী ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এবং স্কুল রাউন্ডে আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজকে হারিয়ে বিজয়ী হয়েছে আদমজী ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুলের ওপর একটি দল।

ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস এগ্রিকালচার অ্যান্ড টেকনোলজি - লোগো
ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস এগ্রিকালচার অ্যান্ড টেকনোলজি – লোগো

বিজয়ীদেরকে ৫০ হাজার টাকা এবং রানার্স আপদের ৩০ হাজার টাকার চেক দেওয়া হয়। এছারাও ‘আইইউবিএটি জাতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতা ২০১৯ সেরা বিতার্কিককে দেওয়া হয়েছে ১০ হাজার টাকা।

প্রতিযোগিতায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইইউবিএটির উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. হামিদা আখতার বেগম ‘আইইউবিএটি জাতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতা ২০১৯-এর প্রধান অথিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কালের কণ্ঠের সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন।

বিশেষ অথিতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নাগরিক টিভির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুন নূর তুষার এবং আইইউবিএটি কোষাধ্যক্ষ এবং ডিবেটিং ফোরাম অফ আইইউবিএটি-এর প্রধান উপদেষ্টা অধ্যাপক সেলিনা নার্গিস।

স্পীকার হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিটিভির সাবেক মহাপরিচালক ম হামিদ এবং সভাপতিত্ব করেন আইইউবিএটির উপাচার্য প্রফেসর ড. আব্দুর রব।

‘আইইউবিএটি জাতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতা ২০১৯ পরিচালনা করেন আইইউবিএটির সহকারী অধ্যাপক ও উপ-পরিচালক, আন্তর্জাতিক প্রোগ্রাম মোঃ সাদেকুল ইসলাম।

ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস এগ্রিকালচার অ্যান্ড টেকনোলজি বাংলাদেশের প্রথম সারির একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়। ১৯৯১ সালের বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় আইনের আওতায় বিশ্ববিদ্যালয়টি স্থাপন করা হয়। ১৯৯২ সালে বিশ্ববিদ্যালয়টি ডিগ্রি প্রদান শুরু করে। থাইল্যান্ডের অ্যাসাম্পশন ইউনিভার্সিটি অব ব্যাংককের সাথে তাদের সহযোগিতা চুক্তি রয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়টি অ্যাসোসিয়েশন অব কমনওয়েলথ ইউনিভার্সিটিজ এর সদস্য।

আরও পড়ুন:

মন্তব্য করুন